সৈকতে ধূমপান নিষিদ্ধ করল থাইল্যান্ড

ফুকেট, কোহ সামুই, ক্রাবির মতো জনপ্রিয় সমুদ্র সৈকতসহ ১৫টি প্রদেশের মোট ২৪টি সৈকতে ধূমপান নিষিদ্ধ করেছে থাইল্যান্ড। সিগারেটের অবশিষ্টাংশ, প্যাকেট নিক্ষেপের ক্ষেত্রেও জারি হয়েছে নিষেধাজ্ঞা।

দেশটির সামুদ্রিক এবং উপকূলীয় সম্পদ বিভাগের (ডিএমসিআর) পরিচালক বান্নারাক সার্মথং বলেন, ‘১ ফেব্রুয়ারি থেকে ধূমপান ও সিগারেটের অবশিষ্টাংশ সৈকতে ফেলা নিষিদ্ধ করা হয়েছে।’

‘কেউ যদি ধূমপান করতে চায় তাহলে তাকে অবশ্যই ধূমপানের জন্য নির্দিষ্ট এলাকায় যেতে হবে। সৈকতে ধূমপান করা যাবে না’, জানান তিনি।

যারা এই নিষেধাজ্ঞা অমান্য করবেন তাদের জন্য ১ লক্ষ বাথ (থাইল্যান্ডের মুদ্রা) বা ৩,১৬৬ ডলার জরিমানা করা হবে। অনাদায়ে ১ বছর কারদণ্ড অথবা উভয় সাজাই হতে পারে। শুরুতেই শাস্তি না দিয়ে সাবধান করা হবে আইন ভঙ্গকারীদের, এমনটাই জানান বান্নারাক। তবে আইনের এই শিথিল সময়টা কত দিন চলবে এবং কোন দিন থেকে আইন ভঙ্গ করা মানেই জরিমানা প্রযোজ্য হবে, সে বিষয়ে নিশ্চিত কোনো তথ্য জানানো হয়নি।

তবে ধূমপায়ীদের একেবারে হতাশ হওয়ার কিছু নেই। পশ্চিম থাইল্যান্ডের ফেটচাবুরি দ্বীপের চা-এম সৈকতে ৫.৫ কিলোমিটার অন্তর অন্তর ৫০টি জায়গা ধূমপানের জন্য নির্দিষ্ট করা হয়েছে। আরও অনেক ধূমপান জোন ভবিষ্যতে স্থাপন করা হবে বলে জানান চা-এম পৌরসভার ভাইস মেয়র।

নভেম্বর থেকেই ধূমপানের নিষেধাজ্ঞাটি ট্রায়াল ভিত্তিতে জারি করা হয়েছিল। এবার চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এলো।

Leave a Reply